1. admin@protidineralo.news : admin :
বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০৩:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নন্দীগ্রামে পারিবারিক কলহে এক নারীর আত্মহত্যা গোবিন্দগঞ্জে অবৈধ বালু উত্তোলন হুমকির মুখে বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধ,ব্রীজ ,রাস্তা ঘাট,আশ্রয়ণ প্রকল্প তাড়াশে উপ-সহকারী প্রকৌশলী (পানাসি)’র ঘুষ বাণিজ্য ও অনিয়মের অভিযোগ তাড়াশে খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার খাদ্য বিতরণ তাড়াশে মোটর সাইকেল আরোহী সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ঝিনাইদহের বাস টার্মিনালে ঢাকাগামী যাত্রীদের ভীড় কোটচাঁদপুরে মেহগনি গাছের ডালে আটকে থাকা যুবককে  উদ্ধার সীমান্ত থেকে ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ঝিনাইদহে ভ্রাম্যমান আদালতে মাদক ব্যবসায়ীর কারাদন্ড ডিমলায় সেনাবাহিনী কর্তৃক মানবিক সহায়তা প্রদান 

রাস্তা ছাড়া এক গ্রাম

প্রশাসন
  • সময় : রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
  • ১১১ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক:

এ যেন রূপকথার এক গ্রাম। দেখতে ছবির মতো সুন্দর, কোথাও কোনো শব্দ নেই। রূপকথার এ রাজ্য দেখতে চাইলে যেতে পারেন গিয়েথুর্ন গ্রামে। এটি নেদারল্যান্ডসের ছোট্ট এবং সুন্দর একটা গ্রাম। সবুজে ঘেরা জাদুকরী এ গ্রামটি পর্যটকদের কাছে খুবই জনপ্রিয়। এটাকে ‘নেদারল্যান্ডসের ভেনিস’ও বলা হয়।

১২৩০ সালে স্বপ্নের মতো এ গ্রামটি প্রতিষ্ঠিত হয়। অন্যান্য স্থান থেকে এ গ্রাম আলাদা কারণ এখানে যাওয়ার কোনো রাস্তা নেই। এ জন্য এখানে কোনো গাড়ির শব্দও শোনা যায় না। গ্রামটিতে যেতে হলে গ্রামের বাইরেই গাড়িটি রেখে যেতে হয়।এখানে যেতে হয় পানিপথে। গ্রামের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে যেতে এখানকার বাসিন্দারা নৌকা ব্যবহার করেন। গ্রামের শান্ত পরিবেশ বজায় রাখতে নৌকাগুলোতে ব্যবহার করা হয় শব্দ ছাড়া ইঞ্জিন। ইতিহাস থেকে জানা যায়, এ গ্রামের বিভিন্ন জায়গায় মাটির নিচে ছোট -বড় ফাঁপা অংশ ছিল। গ্রামে মানুষ বসবাস শুরু করার পর, সেগুলি খুঁড়ে বার করতে শুরু করে।

বছরের পর বছর ধরে সেগুলি খুঁড়ে বার করার ফলে গ্রামের বিভিন্ন জায়গায় ছোটখাটো হ্রদ তৈরি হয়। এ গুলোর একটার সঙ্গে আরেকটা সংযোগ করে এ গ্রামে যেতে পানিপথ তৈরি হয়েছে।

গ্রামের বিভিন্ন দিক থেকে খালগুলি চলে যাওযায় গ্রামটাও ছোট ছোট দ্বীপে পরিণত হয়েছে। এ দ্বীপগুলোর মধ্যে যোগসূত্র তৈরি করেছে ১৫০টিরও বেশি সেতু।

রাজধানী আমস্টারডাম থেকে এ গ্রামটির দুরত্ব ৭৫ কিলোমিটার। বাস বা ট্রেনে সহজেই যাওয়া যায় এ গ্রামের সীমানায়।

ডাচ ফিল্মমেকার বার্ট হান্সট্রা তার কমেডি ফিল্ম ‘ফ্যানফেয়ার’-এর শুটিং এ গ্রামে করার পর ১৯৫৮ সালে গ্রামটা বিশ্বের নজরে আসে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর