1. admin@protidineralo.news : admin :
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১০:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নন্দীগ্রামে জাতীয় পার্টির দোয়া ও খাবার বিতরণ নন্দীগ্রামে ওএমএস’র চাল ও আটা বিক্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন পলাশবাড়ীতে বিশ বছরের রাস্তার কোন মাটি কাটা না হলেও প্রকল্প বাস্তবায়ন: অবৈধ ইউপি চেয়ারম্যান মেম্বারদের অপসারণের দাবী তাড়াশে লক ডাউন বাস্তবায়ন করতে ইউএনও ও বিজিবি ‘র পদক্ষেপ তাড়াশে বিদ্যুৎপৃষ্টে গৃহিনীর মৃত্যু তাড়াশে ছিন্নমুল, ভিক্ষুক ও অসহায়, রিকসা-ভ্যান- চালক, খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে খাদ্য বিতরণ তাড়াশে ২ দিনে করোনা নমুনা পরীক্ষায় ১১ জন সনাক্ত তাড়াশে প্রশাসনের টহল ৮জনকে ভ্রাম্যমাণ দিয়ে টাকা জরিমানা চলনবিলে লক ডাউন উপেক্ষা করেও ঈদ আনন্দ রাজারহাটে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা 

নন্দীগ্রামে আমন ধানের চারা রোপনে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষক

প্রশাসন
  • সময় : শনিবার, ১৭ জুলাই, ২০২১
  • ২২ বার পঠিত

ফজলুর রহমান,নন্দীগ্রাম(বগুড়া)প্রতিনিধি:

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন মাঠে আমন ধানের চারা রোপনের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা। দেশের উত্তরাঞ্চল তথা বগুড়ার শস্য ভান্ডার হিসেবে খ্যাত নন্দীগ্রাম। উপজেলার কৃষকরা বছরে ৩ বার ধানের চাষাবাদসহ রবিশস্য’র চাষাবাদ করে আসছে। এবারও ইতিমধ্যেই উপজেলার কৃষকরা রোপা আমন ধানের চাষাবাদ শুরু করেছে। উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, চলতি রোপা আমন মৌসুমে নন্দীগ্রাম উপজেলায় ২০ হাজার ২শো হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষাবাদের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।এখন পুরোদমে মাঠের ফসলি জমিতে রোপা আমন ধানের চারারোপনের কাজ চলছে। এ উপজেলায় উৎপাদনের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৮৪ হাজার ১৪ মেট্রিকটন ধান। সরেজমিনে নন্দীগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন মাঠে গিয়ে দেখা যায়, কৃষকরা এখন আমন ধানের চারা রোপনের জন্য ব্যস্ত সময় পার করছে। কোন কোন এলাকার জমির পানি শুকিয়ে যাচ্ছে। এজন্য খুব তারাতাড়ি চারা রোপনের জন্য জমি তৈরি করে নিচ্ছে। বেশির ভাগ কৃষক ব্রি-ধান ৪৯,৩৪,৭১, বিনা-৭,১৭,ও কাটারিভোগ জাতের ধান চাষ করছে। রিধইল গ্রামের কৃষক মো: আকবর হোসেন বলেন, আমি ১০ বিঘা জমিতে ৪৯ ও ৬ বিঘা জমিতে ৩৪ ধান লাগাবো। জমি রোপনের কাজ শুরু করেছি। কাথম গ্রামের কৃষক ইয়াকুব আলী জানান, আমি ১৫ বিঘা জমিতে ধানের চাষাবাদ করি। কিছু জমিতে আগাম সবজি ও মরিচ চাষ করি। আমন ধান চাষের জন্য মাঠে নেমে পরেছি। ধান রোপনের শ্রমিক মিন্টু মিয়া বলেন, আমরা প্রতিবিঘা জমি ধান লাগানোর জন্য ১ হাজার টাকা করে নিচ্ছি। খুব রোদ-গরম তাই কাজ করা কঠিন। এবিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আদনান বাবু সাথে কখা বললে তিনি জানান, ২০ হাজার ২শো হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আশাকরি তার চেয়ে বেশি জমিতে চাষাবাদ হবে। এই উপজেলায় বিগত বছরের মত এবারও আমন ধানের বাম্পার ফলন হবে। সে লক্ষ্যনিয়েই আমরা মাঠপর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর