1. admin@protidineralo.news : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নন্দীগ্রামে ৪৪টি মন্ডপে শারদীয় দূর্গা পুজার আয়োজন চলছে সুন্দরগঞ্জে চাঞ্চল্যকর শিশু শুভ হত্যা মামলার ১০ আসামি খালাস নন্দীগ্রাম মনসুর হোসেন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে সীমাহীন দুর্নীতিও নানা অনিয়মের অভিযোগ তাড়াশে অভিমান করে আত্মহত্যা তাড়াশে রাজমিস্ত্রিদের ৪দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ উদ্বোধন পলাশবাড়ীর কিশোরগাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রিন্টুসহ ৬ জন জুয়া খেলা অবস্থায় আটক পলাশবাড়ীতে সড়কের পাশে ড্রেন নির্মাণে বৈষম্যের স্বীকার হয়ে অর্ধশতাধিক ব্যবসায়ি নিঃস্ব নন্দীগ্রামে কারাম উৎসব উদযাপিত ঝিনাইদহে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ঝিনাইদহে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘর নির্মাণ, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা!

বিএনপি যা বলে সবই উন্নয়ন বিরোধী, তাদের লড়াই স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তির সাথে-ঝিনাইদহে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

প্রশাসন
  • সময় : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ১১ বার পঠিত

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ-

বিএনপির লড়াই মুলত স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তির সাথে এবং মুক্তিযুদ্ধে যারা নেতৃত্বদান করেছিল আওয়ামী লীগের সাথে তাদের সাথে বিএনপির দ্বন্দ সেই মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকেই। বিএনপি যা বলে তার সবই উন্নয়ন বিরোধী। সোমবার বিকেলে ঝিনাইদহ সার্কিট হাউজের ৩য় তলা ভবনের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা বলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। মন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার দেশের মানুষের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। আজকে এ দেশ যে যায়গায় এসেছে বিশ্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের মডেল। বাংলাদেশকে এখন ইমাজিন টাইগার বলছে বিভিন্ন দেশ। আমরা নিম্ন আয়ের দেশ থেকে বের হয়ে মধ্যম আয়ের দেশে এসে পৌছেচি এবং আমরা ইতিমধ্যে জাতিসংঘের স্বীকৃতি পেয়েছি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে। আজকে আমাদের মাথাপিছু আয় বেড়েছে কয়েকগুন। আমাদের সেই ৫৩০ ডলার থেকে ২২’শ ৭৫ ডলার মাথাপিছু আয়। বাংলাদেশের মানুষের জীবন মান অনেক উন্নত হয়েছে। বাংলাদেশ এখন অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। আপনারা নিশ্চয় দেখেছেন প্রায় ৯৯% মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ। রাস্তাঘাটের অবকাঠামোতে ব্যাপক উন্নয়ন। স্কুল কলেজে বিল্ডিংগুলো ব্যাপক ভাবে উন্নয়ন হয়েছে। আমার কিন্তু সবক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছি। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মন্তব্য করেছেন ‘আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকেই গুমের সংস্কৃতি চালু হয়েছে’ এই মন্তব্যে আপনার কি বলার আছে? এ প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, মির্জা ফকরুলরা সমস্ত ব্যর্থতা নিয়ে একথা হাস্যকর ছাড়া অন্য কিছু না। জাতি এ সমস্ত কথা কথা প্রত্যাখ্যান করে এবং তাদের কথা সব সময় প্রত্যাখ্যাত হয়। তারা যা বলে সবই উন্নয়ন বিরোধী। তাদের সময়ে তারা যা কিছু করেছে তা সবই মানুষের জানা আছে। প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, যারা ব্যার্থ, যারা অতীতে ব্যার্থ হয়েছে, যারা অতীতে খুনের রাজনীতি করেছে, যারা জাতির পিতাকে হত্যা করেছে, জাতির পিতার হত্যার বিচার যাতে না হয় সেজন্য ইনডেমনিটি বিল পাশ করেছে। যারা সেই স্বঘোষিত খুনিদের মন্ত্রীর মর্যাদায়, রাষ্ট্রদুত হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। এবং মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত শক্তি রাজাকার আল-বদর, আল-শামস। যারা আমাদের বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছে তাদেরকে কিন্তু মন্ত্রীত্বের পতাকা দিয়েছে। আমরা পরবর্তীতে দেখি যে সেই স্বাধীনতা বিরোধীদের সঙ্গে নিয়েই কিন্তু বিএনপি জোট সরকার তৈরী করেছে। এখনও তারা সেই লড়াই করে যাচ্ছে। মুলত বিএনপির লড়াই বিএনপির লড়াই মুলত স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তির সাথে এবং মুক্তিযুদ্ধে যারা নেতৃত্বদান করেছিল আওয়ামী লীগের সাথে তাদের সাথে বিএনপির দ্বন্দ সেই মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকেই। অনুষ্ঠানের ঝিনাইদের জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান, পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সেলিম রেজাসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর